বুধবার, ৩রা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং

মিয়ানমার বিজিপির গুলিতে ১ জেলে নিহত!সীমান্ত চুক্তি লংঘন দাবী বিজিবি’র!!

খাঁন মাহমুদ আইউব(কক্সবাজার)প্রতিনিধি

কক্সবাজার’র টেকনাফ নাফ নদীতে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী’র গুলিতে এক বাংলাদেশী জেলে নিহত হয়েছেন। এসময় অপর জন গুলিবিদ্ধ হয়ে নদীতে পড়ে গেছে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। অন্য জন জলে ঝাঁপ দিয়েছেন প্রাণে বাঁচলেন ।

৬ ফ্রেব্রুয়ারী (সোমবার) সকাল আনুমানিক সাড়ে ৬ টার দিকে টেকনাফ পৌরসভাস্থ চৌধুরীপাড়া এলাকার কবীর আহমেদের ছেলে নুরুল আমিন (২৬) একই এলাকার সোনা মিয়ার ছেলে মুর্তুজা (২৪) এবং নূরুল হাকিম  সহ ৩ জন জেলে নাফ নদীতে ডিঙ্গী নৌকা নিয়ে প্রতিদিনের ন্যায় মাছ শিকার করতে গেলে, মিয়ানমার সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর টহল দল বাংলাদেশের জলসীমা অভ্যান্তরে ২ নম্বর স্লুইচ গেইট রেখায় প্রবেশ করে তাদের ধাওয়া করে।ধরতে না পেরে বিজিপি তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে ঘটনা স্থলে নিহত হয় নূরুল আমিন(২৬)। অপরজন মূর্তুজা গুলিবিদ্ধ হয়ে নদীতে পড়ে যায়। তবে নূরুল হাকিম প্রান ভয়ে পানিতে ঝাঁপিয়ে প্রানে রক্ষা পেয়ে উভয়কে উক্ত নৌকায় করে নদীর কিনারায় আনলে গুলি বিদ্ধ মুর্তুজা ও নুরুল আমিন কে উদ্ধার করে টেকনাফ সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নুরুল আমিন কে মৃত ঘোষনা করেন বলে জানালেন।অপরদিকে আহত মূর্তুজার অবস্থা বেগতিক দেখে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে বলে টেকনাফ সদর হসপিটাল সূত্র নিশ্চিত করেছেন।এদিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে সার্জারী ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় আহত মূর্তুজা তখন ঘুমন্ত অবস্থায় ছিল,তবে অবস্থা বেশ সংকটাপন্ন মনে হয়েছে।কর্তব্যরত ডিঊটি ডক্টর ও সেবিকারা জানান, আমরা যতেষ্ট আন্তরিক ভাবে কেয়ার নিচ্ছি, রোগী যেহেতু সেন্সেটিভ মুমেন্টে আছে এখনো।তাই কোন ভাবে যেন অবহেলার শিকার না হয় সেদিকে আমরা সজাগ রয়েছি।ঘটনার পরবর্তি নদীতে মাছ অবস্থানরত সব নৌকা ভয়ে কূলে ফিরে এসেছে বলে জানিয়েছে নাফের পাড়ে বসবাসরত বেশ কয়েকটি জেলে সূত্র। জেলে সূত্রটি দাবী করছে, নাফ নদীতে মাছ শিকার করাই তাদের একমাত্র রুজির মাধ্যম। আবুল কালাম নামের একজন নৌ-জাল  মালিক বলেন,মিয়ানমার বিজিপি যদি এই ভাবে অত্যচার করে তা হলে অন্তত দেড় হাজার জেলে পরিবার না খেয়ে মরবে নিশ্চিত।তাই তাদের দাবী মিয়ানমারের এই সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকার কে সরাসরি হস্তক্ষেপ করতে হবে।

এই ব্যাপারে টেকনাফ ২বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মি.আবুজার আল জাহিদ নিহতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে বলেন,মিয়ানমার তাদের সীমানা চুক্তির আইন ভঙ্গ করে এদেশীয় নিরিহ জেলেদের হত্যা করে অপরাধ করেছে।যা মারাত্বক উদ্ধেগের বিষয়।আমরা তার প্রতিবাদ জানাচ্ছি।এই বিষয়ে মিয়ানমার কে লিখিত প্রতিবাদ জানানো হবে দাবী করেন সাহসী এই কর্মকর্তা।

তবে টেকনাফ থানা সূত্র জানিয়েছেন,নিহত নূরুল আমিন কে কক্সবাজার মর্গ থেকে সুরতহাল শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন।

বার্তা কক্ষ মেইল:

news.crimewatchbd24@gmail.com

বার্তা কক্ষ মুঠোফোন:

+৮৮ ০১৯ ২০০ ৯৯২৮৮

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত "ক্রাইম ওয়াচ"

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com