বুধবার, ৩রা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং

ফুলবাড়ী পল্লীতে ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে বাড়ি ভাংচুর অগ্নিসংযোগ ও দখলের অভিযোগ

মোঃ মেহেদী হাসান উজ্জল, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদিঘী ইউনিয়নের চৌরাইট আখিরা গ্রামে ক্ষমতাসীন ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে চকিদার, পুলিশ দিয়ে বাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও জমি দখলের অভিযোগ। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদিঘী ইউনিয়নের চৌরাইট আখিরা গ্রামের মৃত মনির উদ্দিন মোল্লার পুত্র মোঃ আনিছুর রহমান ইউনুস আলী ও মোঃ সুলতান মোল্লার অভিযোগে জানা যায়, গত ২৭শে ফেব্র“য়ারি সকাল সাড়ে ১০টায় বেতদিঘী ইউপির চেয়ারম্যান ফুলবাড়ী শহীদ স্মৃতি আদর্শ কলেজের প্রভাষক শাহ্ মোঃ আব্দুল কুদ্দুসের নেতৃত্বে ইউনিয়ন পরিষদের চকিদার ও ফুলবাড়ী থানার পুলিশ কে নিয়ে চৌরাইট আখিরা গ্রামের গিয়ে মোঃ ইউনুস আলী মোল্লার বাড়ি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও জমি দখলের চেষ্টা করে। অবশেষে বাড়ি দখল করতে না পেরে বাড়ির পার্শ্বের জায়গায় ঘেরা বেড়া উকড়ে ফেলে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় মৃত মনির উদ্দিন মোল্লার পুত্র মোঃ আনিছুর রহমান, মোঃ ইউনুস আলী ও মোঃ সুলতান মোল্লা বাধ দিলে তাদেরকে পুলিশ দিয়ে ভয়ভীতি দেখায়। উল্লেখ্য যে, চৌরাইট মৌজার আখিরা গ্রামে ১০০৭ দাগের ১ একর ১১ শতক এর মধ্যে ৫৫ শতক জমি নিয়ে একই গ্রামের প্রতিপক্ষ মৃত অনির উদ্দিন মোল্লার পুত্র মোঃ আফতাব উদ্দিন, মোঃ আশরাফ আলী, আফতাব উদ্দিনের পুত্র মোঃ আনিছুর রহমান, মোঃ তজিমুদ্দিনের পুত্র মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ, মোঃ ওয়াজেদ আলী, আব্দুল ওয়াহেদের পুত্র মোঃ মাসুদ রানা, মোঃ মাহাবুব, ওয়াজেদ আলীর পুত্র মোঃ শাখাওয়াত, জসিম উদ্দিনের পুত্র মোঃ মাজদার রহমান, মাহফুজার, মাজদার রহমানের পুত্র মোঃ ফিরাজুল ইসলাম গংদের সাথে দীর্ঘ ৫ বছর ধরে জমি জমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে গত ২৭শে ফেব্র“য়ারি উল্লেখ্য ব্যক্তিরা ইউপি চেয়ারম্যানের মদদে তাদের বাড়ি ভাংচুর অগ্নিসংযোগ ও জমি দখলের চেষ্টা করে। তাদেরকে সহযোগীতা করে ইউনিয়ন পরিষদের চকিদার ও ফুলবাড়ী থানার পুলিশ প্রশাসন। এদিকে গতকাল ২৮শে ফেব্র“য়ারি দুপুর ১২ টায় পুনরায় আবারো তাদের বাড়িঘর ভাংচুর করে। দীর্ঘদিন ধরে আনিছুর রহমান, ইউনুস আলী ও সুলতান মোল্লা তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি ভোগ দখল করে আসছে। মোঃ সুলতান আলী মোল্লা ১০ জনকে আসামি করে ফৌজদারি কার্যবিধি আইনের ০৬/০৯/২০১৬ ইং তারিখে ১৪৪ ধারা জারি করেন আদালতে। কিন্তু প্রতিপক্ষরা সেই ১৪৪ধারা ভঙ্গকরে ভাংচুর লুটপাট করে। বিবাদীপক্ষরা ক্ষমতাসীন হওয়ার কারণে বাদি পক্ষরা থানায় কোন ন্যায় বিচার পাচ্ছে না। অপরদিকে ৪ নং বেতদিঘী ইউপির সৈয়দপুর গ্রামে নমির উদ্দিনের বাড়ি ভাংচুর করার অপরাধে দিনাজপুর অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ও আইন শৃঙ্খলা বিঘœকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আদালতে ইউপি চেয়ারম্যান শাহ্ধসঢ়; মোঃ আব্দুল কুদ্দুস কে ১ নং আসামি করে ১৪ জনের বিরুদ্ধে ১৫/০২/২০১৭ ইং তারিখে মোঃ নমির উদ্দিন বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন। এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাসিম হাবিব এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ঘটনাটি ঘটেছে তবে বাদিরা কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। এ ঘটনায় বেতদিঘী ইউপির চেয়ারম্যান শাহ মোঃ আব্দুল কুদ্দুস এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, চৌরাইটের বিষয়টি কয়েক দফা বসে মীমাংসার চেষ্টা করেছি। দু’পক্ষকে মিল করে দেওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু দু’পক্ষ কেউ মানছে না। তবে এই ঘটনার সঙ্গে আমি জড়িত নই।

বার্তা কক্ষ মেইল:

news.crimewatchbd24@gmail.com

বার্তা কক্ষ মুঠোফোন:

+৮৮ ০১৯ ২০০ ৯৯২৮৮

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত "ক্রাইম ওয়াচ"

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com