শুক্রবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং

বউ বানাতে শিক্ষিকা নিয়োগ

আব্দুর হাকিম, নাটোর প্রতিনিধি


নাটোরের লালপুর উপজেলার রাধাকান্তপুর হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ বজলুর রহমান সরকারের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিজে বিয়ে করার শর্তে এক মহিলাকে শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে নিজেই বিয়ে করেন। নিয়োগের আট বছর পর মন্ত্রণালয়ের অডিট রিপোর্টে আসমা খাতুন নামের ওই শিক্ষিকার নিয়োগ অবৈধ ঘোষণার পরেও আসামা খাতুন নিয়মিতভাবে বেতন ভাতা পাচ্ছেন। স্কুলের সাথে সংশ্লিষ্ট কয়েকজন স্থানীয় লোকজন জানান, স্কুলে সকল শিক্ষকের পদ পূর্ণ থাকার পরেও বজলুর রহমান সরকার স্থানীয় একটি পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে আসমা খাতুনকে সহকারী শিক্ষিকা পদে নিয়োগ দেন। স্কুল পরিচালনা পর্ষদকে পাস কাটিয়ে তিনি এসব নিয়োগের ব্যবস্থা করেছেন। অডিট আপত্তি জানানোর পরে জনবল অবকাঠামো গোপন রেখেই পরিচালনা পর্ষদের সকল সদস্যকে না জানিয়ে নিজের বউ আসমা খাতুনকে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শাখা শিক্ষিকা হিসেবে অনুমোদন দিয়ে বৈধ করেন। এইকভাবে পরিচালনা পর্ষদকে না জানিয়ে অতিসম্প্রতি স্কুলে একজন পিয়নেরও নিয়োগ দিয়েছেন। প্রধান শিক্ষক বজলুর রহমানের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্য এবং নিবন্ধ পরীক্ষায় পাস করিয়ে দেয়ার নামে নগদ টাকা গ্রহনেরও অনেক অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও ভবন নির্মাণ সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার সৃষ্টির অজুহাতে শিক্ষা বিভাগের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে মোটা অংকের টাকা গ্রহণ করে আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে। তার এসব আর্থিক অনিয়মের বিরুদ্ধে স্থানীয় শিক্ষাঅনরাগী মোঃ জাঙ্গির হোসেন দুদকে প্রতারণা করে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেছেন। এ ব্যাপারে স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোঃ ইসমাইল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসব নিয়োগের ব্যাপারে তেমন কিছুই জানেন না বলে জানান। প্রধান শিক্ষাক মোঃ বজলুর রহমান সরকার তার বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, তিনি কোন কিছুই অনিয়ম করেননি, যা কিছু করেছেন তার সবটাই নিয়ম মেনে করেছেন।

বার্তা কক্ষ মেইল:

news.crimewatchbd24@gmail.com

বার্তা কক্ষ মুঠোফোন:

+৮৮ ০১৯ ২০০ ৯৯২৮৮

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত "ক্রাইম ওয়াচ"

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com