বুধবার, ৮ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং

উল্লাপাড়ায় জালিয়াতির মাধ্যমে দপ্তরী পদে নিয়োগের অপচেষ্টা!

উল্লাপাড়া প্রতিনিধি


সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলা উধুনিয়া ইউনিয়নের ৫২নং চয়রা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে প্রকাশিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির নির্ধারিত সরকারী বয়স নীতিমালা লঙ্ঘন করে ৩১বছরের একজন প্রার্থীকে উৎকোচের বিনিময়ে নিয়োগের অভিযোগ উঠেছে মর্মে জানা যায়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই স্কুলের অভিভাবক সদস্য ও একাধিক প্রার্থীদের অভিযোগে জানা যায়, গত ৩১ জানুয়ারি ৫২নং চয়রা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে ৮জন প্রার্থীর মধ্যে মৌখিক পরীক্ষায় ৩জন প্রার্থীকে যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃত্বীয় করা হয়। এদের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকারী চয়রা পশ্চিমপাড়া গ্রামের আমিনুল ইসলামের ছেলে মোঃ হাসিনুর রহমান যার জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার নং-১৯৮৪৮৮১৯৪৮৭৭২৪৬০৯ অনুযায়ী তার জন্ম তারিখ- ০৪মে, ১৯৮৪খ্রিঃ এবং বর্তমান বয়স ৩৩বছর ১মাস ৬দিন। বিগত ১৬এপ্রিল,২০১৫খ্রিঃ তারিখে প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি যার স্মারক নং-উশিঅ/উল্লা/সিরাজ/দপ্তরী/নিয়োগ/২০১৫/ ৭৩০ মোতাবেক আবেদনের শেষ তারিখ ৪মে,২০১৫খ্রিঃ তারিখে জাতীয় পরিচয় অনুযায়ী বয়স দাড়ায় ৩১বছর। সুচতুর এই প্রার্থী জালিয়াতির মাধ্যমে জাতীয় পরিচয় পত্র গোপন করে ভুয়া জন্ম নিবন্ধন দিয়ে অবৈধভাবে নিয়োগ প্রাপ্তির চেষ্টা অব্যহত রেখেছেন। এবিষয়ে ওই স্কুলের সভাপতি মনজেল হক ফকিরের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, “আমি মূর্খ মানুষ.. কিছুই বুঝিনা। ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ জানান, “আমি এবিষয়ে শিক্ষা অফিসের বড়বাবুকে বলেছি যে স্যার এ বিষয়টি নিয়ে কিন্তুু ঝামেলা হবে কিন্তুু বড় বাবু বলেছে আপনি সাইন করে দেন যা ঝামেলা হবার তা টিএনও স্যার সামলাবেন”। এবিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার মুঠোফোনে বারংবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে নিয়োগ প্রত্যাশী প্রার্থী মোঃ হাসিনুর রহমানের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি সাফ জানিয়ে দেন “সব কিছুই ম্যানেজ করেছি বলেই চাকুরীটা হয়েছে”। উল্লেখ্য, গত ৩মে,২০১৭খ্রিঃ অত্র বিদ্যালয়ের মহিলা অভিভাবক সদস্য কর্তৃক এতদসংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ উপজেলা যাচাই-বাছাই কমিটি, উপজেলা চেয়ারম্যান, অত্র বিদ্যালয়ের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক বরাবর প্রেরণ করা হলেও অজ্ঞাত কারণে অনিয়মের বিষয়টি খতিয়ে দেখেনি আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই থেকে শুরু করে উপজেলা নিয়োগ কমিটির চোখ ফাঁকী দিয়ে ওই প্রার্থীর প্রথম স্থান অধিকার করা ও চুড়ান্ত নিয়োগের সম্ভাবনায় শঙ্কা ও হতাশা প্রকাশের পাশাপাশি উল্লেখিত অনিয়মের বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা সহ কার্যকরী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন অংশগ্রহনকৃত প্রার্থীরা ও স্থানীয় এলাকাবাসী।

বার্তা কক্ষ মেইল:

news.crimewatchbd24@gmail.com

বার্তা কক্ষ মুঠোফোন:

+৮৮ ০১৯ ২০০ ৯৯২৮৮

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত "ক্রাইম ওয়াচ"

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com