বুধবার, ৮ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং

রাণীনগরে ডিস ব্যবসা দন্দের জ্বের,ব্যাপক উত্তেজনা-অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

একেএমকামাল উদ্দিন টগর,নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁর রাণীনগরে ডিস ব্যবসাকে কেন্দ্র করে মারপিটে দেশীয় অস্ত্রের এ্যালোপাতারি আঘাতে গোলাম মোস্তফা (৪০) নামের একজন গুরুত্বর আহত হয়েছে । আহত গোলাম মোস্তফাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় নওগাঁ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনার জের ধরে উপজেলা সদরে এক পক্ষের দফায় দফায় মহড়াই আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। এক পর্যায়ে উত্তেজিতরা উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা চালিয়ে বেশ কিছু চেয়ার-টেবিল ভাংচুর করা হয়েছে। এলাকার সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে উপজেলা সদরের বেশ কয়েকটি পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এঘটনায় এলাকায় ব্যপক উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

জানা গেছে, রাণীনগর উপজেলায় বেশকিছু দিন ধরে ডিস ব্যবসাকে কেন্দ্র করে সায়েম ক্যাবল নেটওর্য়াকের সাথে নওগাঁর এনডিসি ক্যাবল নেটওয়ার্কের দ্বন্দের জের ধরে মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা বরেন্দ্র গেটের সামনে গোলাম মোস্তফাকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এ্যালোপাতারি মারপিট করলে গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রাণীনগর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে নওগাঁ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এই ঘটনার জের ধরে উপজেলা সদরে এক পক্ষের দফায় দফায় মহড়ায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে উত্তেজিতরা উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিস ভাংচুর করে।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন জানান, গোলামকে মারপিটের ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পরলে বেশকিছু লোকজন ইফতারির পূর্ব মূহুর্তে উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসে ঢুকে চেয়ার টেবিল সহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে।

 

রাণীনগর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আহত গোলামের বড় ভাই আনোয়ার হোসেন হেলাল জানান, ডিস ব্যবসাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আমার এবং রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জের মধ্যস্থাতায় বিষয়টি নিরসনের তাৎক্ষনিক সিদ্ধান্ত হলেও সায়েম সহ তার গ্রুপের লোকজন আমার ভাইকে ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতারি ভাবে কুপিয়েছে।
এব্যাপারে সায়েম এর সাথে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

নওগাঁ সদর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার লিমন রায় সন্ধ্যায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে এই ঘটনার সাথে যারা জরিত আছে রাতের মধ্যেই তাদেরকে গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে উপজেলা সদরের বেশ কয়েকটি পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এরির্পোট লেখা পর্যন্ত এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে।

বার্তা কক্ষ মেইল:

news.crimewatchbd24@gmail.com

বার্তা কক্ষ মুঠোফোন:

+৮৮ ০১৯ ২০০ ৯৯২৮৮

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত "ক্রাইম ওয়াচ"

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com