বুধবার, ৮ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং

রায়পুরের ইউপি চেয়ারম্যান পিটিয়ে আহত করলেন বৃদ্ধ ও এসএসসি পরীক্ষার্থীকে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিঃ-

লক্ষ্মীপুরের রায়পুুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দিনমুজর পরিবারের তিন জনকে লাঠি পেটা করে গুরুতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে আওয়ামীলীগ নেতা ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে। পরে স্থানীয়লোকজন আহতদের উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতারে ভর্তি করেন।
ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার বিকালে উপজেলার চরপাতা ইউনিয়ন পরিষদে। এঘটনায় বৃহস্পতিবার দিনমজুর পরিবার থানায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মৌখিক অভিযোগ করেন।বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালে চিকিৎসা দিন খলিলুর রহমান জানান, গত তিন বছর ধরে পূর্ব চরপাতা গ্রামের তমিজ উদ্দিন মুন্সিবাড়ীর প্রভাবশালী জয়নালের পরিবার তুচ্চ ঘটনা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। জয়নাল স্থানীয় চেয়ারম্যানের ফুপাতো ভাই।বুধবার দুপুরে জয়নালের বাড়ীর ছাদের ময়লা পানি খলিলের বসত ঘরে প্রবেশ করে। এরই জের ধরে বিকালে উভয়ের মধ্যে কথাকাটা কাটি মৌখিক ঝগড়া পরে জয়নালেএবং তার স্ত্রী রহিমা তেড়ে এসে খলিলের স্ত্রী খুকি বেগম কে কিল ঘুসি সহ শারিরীক ভাবে মারধর করে । এঘটনায় জয়নাল চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ করেন। এতে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে তিনজন গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে দিনমজুর খলিল, তার স্ত্রী খুকি বেগমকে ছেলে এসএসসি পরীক্ষার্থী রাহাত হোসেনকে ইউপি 
পরিষদে ডেকে এনে কোন কথা না শুনে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ী পিটিয়ে ও কিল ঘুষি দিয়ে মারতে মারতে গুরুত আহত করে আটকে রাখেন পরিষদে। সেখানে এনে ২ ঘন্টাব্যাপি ছেলে রাহাত কে নির্মমভাবে রোল দিয়ে এবং কিল ঘুসি ও তার বুকের উপুর লাথি মেরে আঘাত করে আর দেওয়ালের সাথে মাথা ঠুকে ঠুকে অজ্ঞান মত অবস্থা করে ফেলে রাখে। রাতে খবর শুনে স্বজনরা পরিষদ থেকে আহতদের উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। তাদের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষার্থী রাহাতের অবস্থা আশংকাজনক বলে ডাক্তার জানান। ডাক্তার আহত রাহাত কে সিটিস্ক্যান এবং খলিল কে এক্স- রে করতে
নির্দেশ দেয়। চরপাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম ও আওয়ামীলীগের সভাপতি বলেন, তার আত্মীয় জয়নালের অভিযোগে তিনবার খলিলের পরিবারকে খবর দিলেও তারা আসেনি। তাই বাধ্য হয়ে গ্রামপুলিশ বাড়ীতে পাঠিয়ে তাদের পরিষদে আনা হয়। এসময় তাদের গ্রাম পুলিশেই দু’একটি বাড়ী দেয়। তার মারধরের বিষয় বলেন, মাথা গরম ছিলো তাই বেশী দিয়ে ফেলেছি। মারধর করার নিয়ম আছে কিনা পাল্টা প্রশ্ন করলে লাইন কেটে ফোন বন্ধ করে দেন।
রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, ঘটনাটি লিখিতভাবে এখনও কেউ পুলিশকে জানায়নি। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বার্তা কক্ষ মেইল:

news.crimewatchbd24@gmail.com

বার্তা কক্ষ মুঠোফোন:

+৮৮ ০১৯ ২০০ ৯৯২৮৮

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত "ক্রাইম ওয়াচ"

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com