সোমবার, ১২ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ২৬শে জুন, ২০১৭ ইং

৭০ রান করে ফিরলেন তামিম


অনিয়মিত অফ স্পিনার কেদার যাদবের ওপর চড়াও হতে গিয়ে বোল্ড হলেন তামিম ইকবাল। ৮২ বলে খেলা তামিমের ৭০ রানের ইনিংসটি গড়া ৭টি চার ও একটি ছক্কায়।

তামিমের সঙ্গে ১২৩ রানের জুটিতে মুশফিকের অবদান ৫২ রান। তার সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন আগের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান।

এসেই তিনটি চার হাঁকানো মুশফিকুর রহিম ৬১ বলে পৌঁছেছেন অর্ধশতকে। তামিম ইকবালের সঙ্গে গড়েছেন শতরানের জুটি গড়ে দলকে রেখেছেন বড় সংগ্রহের পথে। অর্ধশতক হাঁকানোর পথে চারটি চার হাঁকিয়েছেন মুশফিক।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩১ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৬৪ রান।

প্রথম পাওয়ার প্লেতে সৌম্য-সাব্বিরকে হারালেও তামিম-মুশফিকের ব্যাটে শতক পেরিয়েছে বাংলাদেশ। ৩১ রানেই ২ উইকেট হারানোর পর এ দুই ব্যাটসম্যানের সতর্ক ব্যাটিংয়ে দলের সংগ্রহ ১৮.৪ ওভারেই শতক পেরিয়েছে। হার্দিক পান্ডিয়ার বলে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হয়েও বেঁচে যাওয়ার তামিম ৬২ বলে অর্ধশতক পূর্ণ করেছেন। এ ইনিংসটি চার চার ও এক ছক্কায় সাজান তামিম।

এই ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই সৌম্যকে হারিয়েছে টাইগাররা। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানকে হারালেও রানের চাকা সচল রাখার চেষ্টা করেছিলেন সাব্বির। এদিন নেমেই চড়াও হতে থাকেন এই মারমুখী ব্যাটসম্যান। তবে ইনিংসটা বড় করতে পারেননি সাব্বির। ভুবনেশ্বরের বলে জাদেজাকে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ২১ বলে চার চারে ১৯ রান করেন।

ইনিংস বড় করতে যেখানে উদ্বোধনী জুটি বড় ভূমিকা রাখে সেখানে দূরের বলও স্ট্যাম্পে টেনে এনে বোল্ড হলেন সৌম্য। ভুবনেশ্বরের বল স্ট‌্যাম্পের বাহির দিয়েই যাচ্ছিল। সেই বল ব্যাটের কানায় লাগিয়ে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে কোনো রানই করতে পারেননি সৌম্য।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৯ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ৩৩ রান। ক্রিজে সাব্বিরের বিদায়ের পর ক্রিজে নেমেছেন মুশফিকুর রহিম।