বৃহস্পতিবার, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ : ১৯শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং

ব্লু হোয়েল; বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী সহ শনাক্ত ২

ইন্টারনেট গেইম ‘ব্লু হোয়েলে’ আসক্ত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এক শিক্ষার্থীকে শনাক্ত করে তাকে কাউন্সেলিংয়ের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

আত্মহননে প্ররোচিত করা এই গেইম বাংলাদেশেও খেলা হচ্ছে বলে বিটিআরসি জানানোর এক দিন বাদেই এতথ্য জানালেন চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মসিউদৌল্লাহ রেজা।

তিনি বলেন, ”হলের অপর এক শিক্ষার্থী গতকাল (মঙ্গলবার) বিষয়টি আমাকে ফেইসবুক মেসেঞ্জারে জানিয়েছিল। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ওই শিক্ষার্থীকে আমাদের হেফাজতে নিয়ে এসে কাউন্সেলিং করি।”

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই শিক্ষার্থী পুলিশকে বলেছেন, গত ৫ অক্টোবর ফেইসবুকের মেসেঞ্জারে আসা একটি লিঙ্কে ক্লিক করার পর ব্লু হোয়েল গেইমটি তার মোবাইলে ডাউনলোড হয়ে যায়। তারপর তিনি খেলতে শুরু করেন।

শিক্ষার্থীটি গেইমের চারটি ধাপ পার হয়েছিলেন জানিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা রেজা বলেন, ”প্রথম ধাপে ওই শিক্ষার্থী সারারাত ক্যাম্পাসে হেঁটেছে, দ্বিতীয় ধাপে হলের ছাদের রেলিংয়ে এবং তৃতীয় ধাপে হাত কেটে তিমি মাছের ছবি আঁকে। চতুর্থ ধাপে সে সারাদিন চুপ করে বসে ছিল।”

কাউন্সেলিংয়ের পর ওই শিক্ষার্থী নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা রেজা। তিনি বলেন, তাকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে পরে হস্তান্তর করা হবে, তবে পুলিশ নিয়মিত যোগাযোগ রাখবে।

এছাড়া রাজধানীর মিরপুরে ৯ম শ্রেণীর এক ছাত্র অনলাইন ভিত্তিক আত্মঘাতী গেইমে আসক্ত হয়ে ঘুমের বেশ কয়েকটি ট্যাবলেট খেয়ে অচেতন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

হাসপাতালের চিকিৎসক জানান, অনলাইন ভিত্তিক একটি গেমে আসক্ত হয়ে ঘুমের ওষুধ খেয়েছিল বলে ছেলেটি স্বীকার করেছে। তবে, ওই ছাত্রের বাবার দাবি, কোন গেমে আসক্ত ছিলনা তার ছেলে।

ঘুমের বেশ কয়েকটি ট্যাবলেট খেয়ে অচেতন হয়ে পড়লে গত মঙ্গলবার ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করা হয় মিরপুরের এই ছেলেটিকে। প্রথমে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি না হলেও পরবর্তীতে ছেলেটি জানায়, অবসর সময়ে সে কম্পিউটার, ফেইসবুক আর ইউটিউব নিয়ে ব্যস্ত থাকতো। অনলাইন ভিত্তিক গেইমটি সম্পর্কে জানতে চাইলে গেইমটির নানা দিক সম্পর্কে জানায় সে। তবে, ব্লু হোয়েল গেইম খেলার বিষয়টি অস্বীকার করে ছেলেটি।

গেইম খেলা ছেলেটি বলে, ‘আমরা ধারণা পুলিশ যদি বাংলাদেশে একটু খুঁজে এই বিষয়ে তাহলে দেখা যাবে এই ব্লু -হোয়েলের প্রচুর অ্যাডমিন আছে।’

মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক জানান, হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরই এই গেইম খেলার বিষয়টি ডাক্তারের কাছে স্বীকার করে ছেলেটি। অনলাইন ভিত্তিক এই গেইম থেকে ছেলেটিকে বিভিন্ন কাজ দেয়া হয়। আর এই গেইমের নেশায় পড়ে সে ঘুমের ওষুধ খায় বলে জানান চিকিৎসক।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সহকারী রেজিস্টার ডা. মুক্তাদির রশিদ বলেন, ‘ছেলেটির মা আমাকে বলেছে সে ব্লু -হোয়েল গেইম এর সাথে জড়িত ছিল।’

ছোটদের ইন্টারনেট ব্যবহারে পরিবারের সদস্যদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ।

বার্তা কক্ষ মেইল:

news.crimewatchbd24@gmail.com

বার্তা কক্ষ মুঠোফোন:

+৮৮ ০১৯ ২০০ ৯৯২৮৮

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত "ক্রাইম ওয়াচ"

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com